Friday , July 30 2021
Breaking News

হালদায় আবার ও ডলফিনের মৃত্যু

হালদায় আবার ও ডলফিনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

দক্ষিণ এশিয়ার বিখ্যাত নদী হালদা।যা চট্টগ্রাম জেলার রাউজান উপজেলায় অবস্থিত।এতে বিচরণ করে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ।প্রতি বছর এই নদীতে ডিম ছাড়ে মা মাছ।বালু তোলা,পানি দূষণ করা সহ নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে ধ্বংস হচ্ছে হালদার জীববৈচিত্র।
মাত্র ১৬ দিনের ব্যবধানে আবার মারা গেল ২৫ তম ডলফিন।যা ৮ফুট লম্বা এবং ৭০–৮০ কেজি ওজনের।ধারণা করা হয় ডলফিনটি জেলেদের জালে আটকা পড়ে শ্বাসরূদ্ধ হয়ে মারা যায়।পরে রোববার (২৪ মে)মৃত ডলফিনটি জিয়া বাজার এলাকায় ভেসে উঠে।মৃত ডলফিনের মুখে জাল আটকা ছিল।
এর আগে শুক্রবার(৮মে) সুপরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয় ২৩ তম ডলফিনকে। ডলফিনটি দৈর্ঘ্যে ৫ফুট ২ ইঞ্চি ছিল।যার ওজন প্রায় ৫২ কেজির মত।এই ডলফিনটি জালে আটকা পড়লে জেলেরা সেটিকে ডাঙায় তুলে এনে আড়াআড়ি কেটে হত্যা করে।
আজকের ডলফিন হত্যা প্রসঙ্গে,হালদা নদী গবেষক ও চট্টগ্রামবিশ্ব বিদ্যালয়ের প্রাণীবিজ্ঞাণ বিভাগের অধ্যাপকঃ মনজুরুল কিবরিয়া বলেন” মৃত ডলফিনের ছবি তুলে হালদার ডলফিন বিষয়ক কমিটির কাছে পাঠিয়েছি।বাকি ব্যবস্থা উনারা করবেন।”
৮ই মে ২৪ তম ডলফন হত্যার পর এবারই ১ম হলদা নদীতে ডলফিন হত্যা বন্ধেকার্যকর নির্দেশনা চেয়ে রিট দায়ের করা হয়েছিল হাইকোর্টে।ঐ রিটের ভিত্তিতে ১৯ মে হালদার জীববৈচিত্র্য, কার্পজাতীয় মা-মাছ ও ডলফিন রক্ষায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে১৪ সদস্যের কমিটি গঠণ করে হাইকোট।এই কমিটির নামকরণ করা হয়” হালদা নদীর ডলফিন হত্যা রোধ,প্রাকৃতিক পরিবেশ,জীববৈচিত্র্য ও মা-মাছ রক্ষা করা কমিটি।পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ১৪ সদস্যের কমিটিকে কাজ করে যেতে বলা হয়েছে।
আগে যতটি ডলফিন মারা গিয়ে ভেসে উঠত প্রতিবরে ধারণা করা হত স্টিমার বা যন্ত্র চলিত নৌকার পাখনায় লেগে মারা গেছে।তবে শেষ ৩ টি ডলফিন বদলে দেয় সমস্ত চিন্তা ধারা।২৪নাম্বার ডলফিনটি হত্যাকরা হয় ঠান্ডা মাথায়।২৫নাম্বার ডলফিনটি মারা যায় জালে আটকে শ্বাসরূদ্ধ হয়ে।
তথ্য মতে,সারা বিশ্বের বিভিন্ন নদীতে ডলফিন আছে ১হাজার১০০টি। এর মধ্যে হালদায় আছে ১৭০টি।২০১৭ সালের মাঝামাঝি থেকে এই পর্যন্ত হত্যা করা হয় ২৫ টি ডলফিন।আর আছে মাত্র ১৪৫টি ডলফিন।এই ডলফিন বিচরণ করে দূষণ মুক্ত পানিতে।এর স্থানীয় নাম হুত্তুম মাছ।
২০১০সালে জলজ জীববৈচিত্র রক্ষায় নাজির হাট থেকে ৪০ কি.মি. অভয়ারণ্য ঘোষণা করা হয়।তবে,মাছের বিচরণ ক্ষেত্র হলো রাউজানের ছত্রার খালের মুখ থেকে হাটহাজারী মদুনাঘাট পর্যন্ত।
শেষ তিনটি ডলফিন হত্যা সংগটিত হয় উরকিরচর ইউনিয়নের ১নং ওয়র্ডের আজিমঘাট এলাকায়।
রাউজান উপজেলা কর্মকর্তা জুনায়েদ কবির সোহাগ জানানঃনদীও জলজ জীববৈচিত্র্য রক্ষায় সরকার সকল বালুর ইজারা বন্ধ করে দিয়েছেন।তবে অবৈধভাবে বালুতোলা,পনিদূষণ সহ বিভিন্ন কার্যক্রম বন্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

About provatbarta

Check Also

কাল থেকে সকাল-সন্ধ্যা চলবে গণপরিবহন!

সুমাইয়া আক্তার শিখাঃ করোনার বিস্তার ঠেকাতে সারাদেশে এক সপ্তাহের জন্য গণপরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: