সদ্য প্রাপ্ত
দে‌শের প্রতি‌টি জেলা উপ‌জেলায় সংবাদকর্মী নি‌য়োগ দেওয়া হ‌বে। আগ্রহিরা যোগা‌যোগ করুনঃ ০১৯২০৫৩৩৩৩৯
ভুরুঙ্গামারীতে লক্ষাধিক মানুষের আহাজারি….. একটি সাঁকোও মিলেনা কপালে কষ্টে চলে পথচারী।

ভুরুঙ্গামারীতে লক্ষাধিক মানুষের আহাজারি….. একটি সাঁকোও মিলেনা কপালে কষ্টে চলে পথচারী।

 

সূর্য বসাক,
স্ট্যাফ রিপোর্টার:

কুড়িগ্রাম জেলার ভুরুঙ্গামারী উপজেলার চর ভুরুঙ্গামারী ঈদগামাঠের দক্ষিন পার্শে খুবি গুরুত্বপূর্ণ ব্রিজ টি একাত্তরের সাধীনতা যুদ্ধের পর বিগত ৫০ বছরেও সংস্কার করা হয়নি।

চর ভুরুঙ্গামারী ও দঃতিলাই দুইটি ইউনিয়নের জনগণের উপজেলা, জেলা, এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় যাওয়ার একমাত্র চলাচলের জন্য রাস্তা এটাই।
এলাকা বাসির প্রানের দাবি কয়েক শতবার লিখিত ওলিখিত ভাবে অভিযোগ করেও কোনো কাজ হয়নি। নতুন হাট থেকে পাইকেরছা পর্যন্ত ৩ কিঃমিঃ পাকা রাস্তা ও একটি ব্রিজ নির্মান করার জন্য চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান, এবং এম পি মহদয়দের নিকট আকুল আবেদন করে আসছেন
কিন্তু এ দাবি আমলে আসেনি কারও।

সারা বাংলাদেশে উন্নয়নের রোল মডেল হলেও যোগাযোগ ব্যাবস্থা ব্যাহত থাকায় এখনো উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি এই অবহেলিত এলাকাটিতে।

উল্লেখ্য অনেক প্রতিক্ষার পর ইউনিয়নের সুযোগ্যা চেয়ারম্যান এটি এম ফজলুল হকের মাধ্যমে গতবছর ৭৫.০০০ হাজার টাকার একটি বাজেট থাকলেও কয়েকটি বাঁশ কিনে মাত্র ৮০০০ হাজার টাকা খরচ করে এই বাসের সাকো নির্মান করেন। দুঃখের বিষয় হচ্ছে সাঁকো নির্মানের ১৫ দিন পরেই সাঁকোটি পানিতে ভেসে যায়।

এলাকা বাসির প্রানের দাবি অতিসত্তর রাস্তা ও ব্রিজটি নির্মান করে সাধারণ মানুষের জনজীবনের মান উন্নয়নের মাধ্যমে এলাকাবাসীর অভিশপ্ত জিবনের সমাপ্তি ঘটিয়ে ডিজিটাল বাংলার রোল মডেলের ভাগিদার করে নেওয়ার জন্য আশায় বুক বেধে থাকার আহবান ।

সংবাদটি প্রচার করুন




© All rights reserved © 2020 Daily Provat Barta
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com