সদ্য প্রাপ্ত
দে‌শের প্রতি‌টি জেলা উপ‌জেলায় সংবাদকর্মী নি‌য়োগ দেওয়া হ‌বে। আগ্রহিরা যোগা‌যোগ করুনঃ ০১৯২০৫৩৩৩৩৯
সিংগাইরে মাদক ব্যবসায়ী খুন

সিংগাইরে মাদক ব্যবসায়ী খুন

 

সিংগাইর উপজেলা প্রতিনিধি-
আলমগীর হাসান

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে মাদকের চালান চুরির অভিযোগে লালন দেওয়ান (৪০) নামে এক যুবককে অপহরণের পর পিটিয়ে হত্যা কারার অভিযোগ উঠেছে মাদক কারবারিদের বিরুদ্ধে। নিহত লালন দেওয়ান পৌর এলাকার মধ্য সিংগাইর মহল্লার মৃত দেওয়ান হারুন অর রশিদের ছেলে। সে দুই সন্তানের জনক। শনিবার (২৭ জুন) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার বলধারা ইউনিয়নের খোয়ামুড়ি এলাকায় একটি পাটক্ষেত থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহতের পরিবারের অভিযোগ, প্রতিবেশী খন্দকার আল-মামুন খসরুর ছেলে মাদক কারবারি উজ্জল (৩২) ও অনিক (২৭) এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। ঘটনার পর তারা পলাতক। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

থানা পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উজ্জল এলাকার চিহ্নিত মাদক কারবারি। লালন দেওয়ান ও উজ্জলের বাড়ি পাশাপাশি। বেশ কিছুদিন আগে উজ্জল দুই লক্ষাধিক টাকা মূল্যমানের একটি ইয়াবার চালান নিজ বাড়ির ছাদের কার্নিশে লুকিয়ে রাখে। সেখান থেকে মাদকের চালানটি খোয়া যায়। এ ঘটনায় লালন দেওয়ান জড়িত সন্দেহে তার কাছে মাদকের চালানটি ফেরত চায় উজ্জল। কিন্তু মাদক চুরির কথা অস্বীকার করে লালন দেওয়ান। এ নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়।

নিহত লালন দেওয়ানের স্ত্রী মমতাজ বেগম বলেন, মিথ্যা চুরির অভিযোগ এনে মাদকের চালান ফেরত দিতে আমার স্বামীকে চাপ দেয় উজ্জল ও তার ভাই অনিক। একপর্যায়ে মাদকের চালান ফেরত দেওয়ার বিনিময়ে পঞ্চাশ হাজার টাকার প্রস্তাব দেয় তারা। বিষয়টি স্থানীয় থানা পুলিশকে জানানো হয়। এরপরও উজ্জল ও তার ভাই অনিক আমার স্বামীকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিল।

নিহতের ভাই হালিম দেওয়ান বলেন, শুক্রবার (২৬ জুন) সাড়ে ৯টার দিকে লালন দেওয়ান বাইসাইকেলে করে স্থানীয় ঘোনাপাড়া মোড়ে চা খেতে যান। সেখান থেকে ফেরার পথে উপজেলা হাসপাতাল রোডের কামালের বাড়ির সামনে পৌঁছলে লালনের গতিরোধ করে উজ্জলসহ ৪/৫ জন যুবক। এ সময় জোর করে লালনকে একটি মাইক্রোবাসে উঠিয়ে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় তারা। ঘটনাটি সঙ্গে সঙ্গে থানা পুলিশকে জানানো হয়। সারা রাত খোঁজাখুঁজি করার পরও ভাইয়ের সন্ধান পায়নি। আজ সকালে উপজেলার বলধারা ইউনিয়েনের খৈয়ামুড়ি এলাকার একটি পাটক্ষেতে হাত-পা বাঁধা ও রক্তাক্ত অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায়।

সিংগাইর থানার ওসি আব্দুস সাত্তার মিয়া জানান, লালন দেওয়ানের খোঁজ করতে শুক্রবার থানায় এসেছিল তার স্ত্রী ও পরিবারের লোকজন। তাদের কাছ থেকে ঘটনাটি জানার পর তাকে উদ্ধারে নামে পুলিশ। সারা রাত চেষ্টা করেও লালন দেওয়ানকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। আজ শনিবার ভোরে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে দুপুরের দিকে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হেচ্ছে, পূর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন লালনকে পিটিয়ে হত্যা করেছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

সংবাদটি প্রচার করুন




© All rights reserved © 2020 Daily Provat Barta
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com