সদ্য প্রাপ্ত
দে‌শের প্রতি‌টি জেলা উপ‌জেলায় সংবাদকর্মী নি‌য়োগ দেওয়া হ‌বে। আগ্রহিরা যোগা‌যোগ করুনঃ ০১৯২০৫৩৩৩৩৯
শিরোনামঃ
‌ ত্রিশাল পৌরসভার বা‌জেট ঘোষণা কোভিড (১৯) রে‌া‌ধে দিনাজপুর জেলা পু‌লিশ সুপা‌রের বি‌শেষ অ‌ভিযান শ্রীপুরে আওয়ামী লীগের ৭২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত এ‌তি‌মদের ভো‌গের টাকায় উই পোকার আক্রমন করোনা ভাইরাস জনিত রোগ কোভিড ১৯ সংক্রমন বিস্তাররোধ করায় টাঙ্গাইল পৌরসভা ও এলেঙ্গা পৌরসভায় কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে গণ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ । ” টাঙ্গাইলে প্রেমিকার আত্মহত্যা “ আওয়ামী লীগের হাত ধরেই স্বাধীনতা সোনার বাংলাদেশ লায়ন আলহাজ্ব আবু তৌহিদ শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বীর উত্তম এর ৪০তম শাহাদাত বার্ষিকীর আলোচনা সভা ঈশ্বরগঞ্জে সাংবাদিকদের সাথে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফিং ঈশ্বরগঞ্জে দুই জনের কারাদন্ড
ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ
সৌদি আরবে জেদ্দায় প্রতারিত হচ্ছে বাংলাদেশী শ্রমিক

সৌদি আরবে জেদ্দায় প্রতারিত হচ্ছে বাংলাদেশী শ্রমিক

নিজস্ব প্রতিবেদক: সৌদি আরবের জেদ্দায় ফাইভ স্টার হোটেলে চাকরির কথা বলে শতাধিক বাংলাদেশী শ্রমিককে সৌদি আরব পাঠানো হলেও তাদের কেউই ওই হোটেল দেখা তো দূরের কথা, অদ্যাবধি কফিলও (নিয়োগকর্তা) খুঁজে পাননি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এখন পর্যন্ত কারোর নামে ইকামাও হয়নি। একারণে দীর্ঘ এক বছরের বেশি সময় ধরে রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক তার প্রতিনিধির মাধ্যমে একাধিক কোম্পানিতে শ্রমিকদের ‘ছুটা’ কাজ দেয়ার ব্যবস্থা করলেও ওই কোম্পানিগুলো কাউকে ঠিক মতো বেতন পরিশোধ করেনি। বেতন না পাওয়ার কষ্টের কারণে তাদের দিন কাটছে অনাহারে। কেউ কেউ দেশ থেকে ঋণ করে যাওয়া লাখ লাখ টাকা কিভাবে পরিশোধ করবেন সেটি ভেবেই এখন অনেকে দিশেহারা। প্রতারিত শ্রমিকরা ঢাকার রিক্রুটিং এজেন্সি ‘লাব্বাইক ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস’-এর মালিকের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগের তদন্ত করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়ে তারা বলছেন, কফিলের মাধ্যমে ইকামা তৈরি করে চুক্তি মোতাবেক তাদেরকে চাকরির ব্যবস্থা করানোর জন্য তারা প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্র ও প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
গতকাল ১০ জুলাই শুক্রবার বিকেলে লাব্বাইক ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরসের স্বত্বাধিকারী আলহাজ জামাল উদ্দিন আহমেদ মোল্লার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার প্রতিষ্ঠান থেকে সৌদি আরবে পাঠানো কিছু শ্রমিকের ইকামা না হওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, তাদেরকে রিয়াদের যেখানে কাজ দেয়া হয়েছিল, সেখান থেকে তারা অন্যত্র চলে যাওয়ায় সমস্যা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে অন্যান্য জায়গায় তাদের কাজের ব্যবস্থা করা হয়। তিনি বলেন, শ্রমিকরা এখন যেখানে ছয়-সাত মাস ধরে কাজ করছে সেখান থেকে জেদ্দার সানাইয়া ফ্রুট প্রসেসিং ফ্যাক্টরিতে ১০ ঘণ্টার ডিউটিতে ১২০০ রিয়াল বেতনে চাকরি দেয়ার কথা বলা হচ্ছে। ওই ফ্যাক্টরিতে আমার আপন ছোট ভাই আছে; কিন্তু শ্রমিকরা সেখানে যেতে চাচ্ছে না। টালবাহানা করছে। সেখানে গেলে কোম্পানি কাজও দেবে এবং তাদের ইকামাও করে দেবে বলে দাবি করেন তিনি। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘শ্রমিকদের ফাইভ স্টার হোটেলের কাজে নয়, রিয়াদের এয়ারপোর্ট ও মার্কেটের কাজে পাঠানো হয়েছিল।

সংবাদটি প্রচার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2020 Daily Provat Barta
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com