সদ্য প্রাপ্ত
দে‌শের প্রতি‌টি জেলা উপ‌জেলায় সংবাদকর্মী নি‌য়োগ দেওয়া হ‌বে। আগ্রহিরা যোগা‌যোগ করুনঃ ০১৯২০৫৩৩৩৩৯
বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তনের বিপক্ষে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, ইসলামী আন্দোলন!

বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তনের বিপক্ষে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, ইসলামী আন্দোলন!

শাহীন ইসলাম বরিশাল জেলা প্রতিনিধিঃ-

বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তন করে অশ্বিনী কুমার দত্তের নামে নামকরণের দাবি জানিয়ে আন্দোলনে নেমেছে নগরীর সাংস্কৃতিক সংগঠন ও বাম সংগঠনের নেতারা। দাবি বাস্তবায়নে একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে। কমিটির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট মানবেন্দ্র বটব্যালের নেতৃত্বে সংবাদ সম্মেলন এবং প্রধানমন্ত্রী ও জেলা প্রশাসকের বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে। যদিও সরকারি বরিশাল কলেজের নাম অপরিবর্তিত রাখতে ধীরে ধীরে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, ইসলামী আন্দোলনসহ দেশের বৃহৎ রাজনৈতিক দলগুলো।

বরিশাল কলেজের সাবেক ভিপি ও মহানগর আ.লীগের সভাপতি অ্যাড. একেএম জাহাঙ্গীর বলেন, দীর্ঘদিন পরে হঠাৎ করে কেন কলেজটির নাম পরিবর্তনের দাবি উঠল। ১৯৮৬ সালে যখন কলেজটি সরকারি হলো তখন কেন এ দাবি উঠল না। বরিশাল জেলা প্রশাসক গোপনে কাদের নিয়ে কলেজটির নাম পরিবর্তনের প্রস্তাব পাঠাল। এ প্রস্তাব পাঠাতে হলে ডিসি যে রেজ্যুলেশন করেছেন তাতে কারা ছিল বরিশালবাসী জানতে চায়। তিনি দাবি করেন, সরকারি বরিশাল কলেজের নাম অপরিবর্তিত থাকতে হবে।

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও মহানগর সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ার বলেন, তিনি বরিশাল হার্ট ফাউন্ডেশন গড়ে তোলেন। অনেকেই এটিকে জিয়াউর রহমানের নামে করার প্রস্তাব করলেও প্রতিষ্ঠানটির নাম পরিবর্তন করেননি। বরিশাল বিভাগীয় শহর। সরকারি বরিশাল কলেজ বরিশালের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এ কলেজের উচ্চমাধ্যমিকের ছাত্রও ছিলেন তিনি। এটি বরিশালের শত বছরের ঐতিহ্য। নতুন করে এর নামে পরিবর্তন করা উচিত হবে না। মানুষ এটি ভালোভাবে গ্রহণ করবে না বলে জানান তিনি।

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মহসিন উল ইসলাম হাবুল বলেন, ৮০ এর দশকে এরশাদের আমলে কলেজটি সরকারিকরণের দাবিতে আন্দোলন করে বরিশালবাসী। এর পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৮৬ সালে এরশাদ বরিশালে এসে বরিশাল কলেজকে সরকারি ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, তখন এ কলেজের নাম নিয়ে কেউ প্রশ্ন তোলেননি। কিন্তু এতো বছর পর কারা, কোন স্বার্থে এ কলেজটির নাম পরিবর্তন করতে চাচ্ছেন তা জাতি জানতে চায়। তারা কি কলেজটির উন্নয়নের কথা কখনোই ভেবেছে? কলেজের নামকরণে অশ্বনী কুমার দত্তের মতো গুণী ব্যক্তিকে মূল্যয়ন করা হোক জাপা তা মনে করে না।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র মহানগর সভাপতি মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করিম বলেন, সরকারি বরিশাল কলেজের নাম অপরিবর্তিত রাখার দাবিতে তার ছাত্র সংগঠন শনিবার নগরীতে মানববন্ধন করেছে। দেশটিকে যারা ভিনদেশি করার স্বপ্ন দেখছে তারাই নাম পরিবর্তনের এ চক্রান্ত করছে। এটা বরিশালের অস্তিত্বের প্রশ্ন। এমন চক্রান্ত রুখতে অচিরেই তিনি গোলটেবিল বৈঠক করতে যাচ্ছেন।

এ প্রসঙ্গে বরিশাল জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান বলেন, সুধী সমাজের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তিনি কলেজটির নাম পরিবর্তনের প্রস্তাব পাঠিয়েছেন। মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। এ ব্যপারে বরিশাল শিক্ষা বোর্ড চেয়ারাম্যান মোহাম্মদ ইউনুস সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তিনি বর্তমান পরিস্থিতিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে কোনো প্রতিবেদন পাঠাবেন না। এর কারণ হিসেবে দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি অবস্থানের কথা অবহিত করা হবে।

সংবাদটি প্রচার করুন




© All rights reserved © 2020 Daily Provat Barta
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com