সদ্য প্রাপ্ত
দে‌শের প্রতি‌টি জেলা উপ‌জেলায় সংবাদকর্মী নি‌য়োগ দেওয়া হ‌বে। আগ্রহিরা যোগা‌যোগ করুনঃ ০১৯২০৫৩৩৩৩৯
শ্রীপুরে যাতায়েত রাস্তা নিয়ে দু’পক্ষের দন্দ¦

শ্রীপুরে যাতায়েত রাস্তা নিয়ে দু’পক্ষের দন্দ¦

গাজীপুর প্রতিনিধিঃ

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের ধনুয়া দক্ষিণপাড়া গ্রামে বাড়ির রাস্তা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দন্দ্ব চলে আসছে।উপজেলার ধনুয়া দক্ষিনপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল গণি মিয়ার ছেলে আঃ আজিজ একই এলাকার মৃত মান্নান মিয়ার ছেলে সিদ্দিক মিয়ার সাথে রাস্তা নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলছে। গত ৩ আগস্ট দুপরে রাস্তা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির ঘটনা ঘটে।

সিদ্দিক মিয়া রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন পিক-আপ বেনগাড়ি নিয়ে যাওয়ার পথে রাস্তার পাশে খুঁটির মাঝে গাড়ির ধাক্কা লেগে টিনের ছাপরা ভেঙে পড়ে যায়। তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় দু’পক্ষের হাতাহাতি শুরু হয়। এ ব্যাপারে আব্দুল আজিজ বাদী হয়ে শ্রীপুর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ রাস্তার বিষয়ে এর আগে ১৯ জুলাই ছিদ্দিক বাদী হয়ে শ্রীপুর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ দেওয়ার পর এস আই মাইন উদ্দিন ঘটনাস্থল সরেজমিনে পরিদর্শন করেন।

এরই ধারাবাহিকতায় ৩ আগস্ট আনুমানিক দুপুর ১ টার দিকে সিদ্দিক ও আজিজ মিয়ার মধ্যে দন্দ্ব হয়।

আজিজ মিয়ার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,সিদ্দিক মিয়া গাড়ি নিয়ে যাওয়ার পথে খুঁটিতে ধাক্কা লাগলে টিনের ছাপড়া পড়ে যায়। পরে কথা কাটাকাটির একপর্যায় মূত্য আঃ মান্নান মিয়ার ছেলে সিদ্দিক ও তার ভাই, আঃ সাত্তার (৫০), রশিদ (৫২), আফির উদ্দিনের ছেলে মোঃ মহিউদ্দিন (৩৫) সহ অনেকে হাতাহাতি কিলাকিলি শুরু করে,একপর্যয়ে আঃ আজিজের ছেলের বৌ নয় মাসের অন্তঃস্বত্বা আখি আক্তার আঘাত পেলে আঃ আজিজ এর ডাক চিৎকার শুনে অনেকেই এগিয়ে আসে। পরে তাকে উদ্ধার করে শ্রীপুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

সিদ্দিক মিয়া বলেন, আমরা এলাকার লোকজন দীর্ঘদিন যাবত এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করে আসছি, একাদিক বার বিচার শালিস করেও রাস্তার সমাধান করা যাচ্ছে না। হঠাৎ করে রাস্তার উপরে আজিজ একটি টিনের ছাপরা নির্মান করেন। যার কারনে আমাদের গাড়ি নিয়ে চলা চলের অসুবিধা হয়। একপর্যায়ে আমার গাড়ি খুটিতে হালকা ধাক্কা লেগে যায়। আমি তাকে বুঝানোর চেষ্টা করলে আজিজ ও তার ছেলেরা আমার উপরে চরাও হয় এবং আমাকে গালিগালাজ শুরু করে। এবং আজিজের ছেলের বৌ আখি তখন ঘটনাস্থালে ছিলনা। আঘত পেয়েছে কিনা তা আমার জানা নেই। তারা আমাকে হয়রানি করার জন্য আমার নামে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।

এবিষয়ে আখি আক্তারের ভাই রাকিব বলেন,আমার বোন এখন সুস্থ্য রযেছে এবং পেটের সন্তানও সুস্থ্য। আমার বোন ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ওইদিন আমার বোন অসুস্থ্য হয়ে পরায় শ্রীপুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় আছেন।
৬ আগস্ট দুপুরে এবিষয়ে রুবেলের স্ত্রী আখি আক্তারের সাথে মোবাইলফোনে কথা বললে প্রতিবেদককে আখি বলেন,আমি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছি বর্তমানে আমি শারীরিক ভাবে সুস্থ আছি। আমার পেটের সন্তানও ভালো ও সুস্থ আছে। এখন আমি যে কোন সময় বাড়ী চলে আসতে পারি।

শ্রীপুর থানার মাওনা চকপাড়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মোঃ সোহেল রানা জানান, দুই পক্ষের অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের প্রেক্ষিতে এ,এস,আই মোসাব্বির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এবং ৬ আগষ্ট বৃহস্পতিবার দুই পক্ষের সমঝোতার জন্য বসার কথা ছিল। কিন্তু আজিজ মিয়া থানায় এসে বলেন তার ছেলে রুবেলের স্ত্রী আখি আক্তার অসুস্থ। রুবেলের স্ত্রী আখি আক্তার সুস্থ্য হলে পরর্তীতে দু’পক্ষকে নিয়ে বসে সমাধারেন চেষ্টা করা হবে।

সংবাদটি প্রচার করুন




© All rights reserved © 2020 Daily Provat Barta
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com