সদ্য প্রাপ্ত
দে‌শের প্রতি‌টি জেলা উপ‌জেলায় সংবাদকর্মী নি‌য়োগ দেওয়া হ‌বে। আগ্রহিরা যোগা‌যোগ করুনঃ ০১৯২০৫৩৩৩৩৯
শিরোনামঃ
নাসিরনগরে গ্রেপ্তারী পরোয়ানাভুক্ত আসামীর পালিয়ে বিদেশ যাওয়ার চেষ্ঠা ব্যর্থ নবীন ও প্রবীন ফেনীর মিডিয়া ও গণমাধ্যম কর্মীদের মিলনমেলা অনুষ্ঠিত! শেরপুরে মুজিববর্ষে ২৯১ ভূমিহীন পরিবার পাচ্ছে জমিসহ ঘর শেরপুর শহর ছাত্রদলের আহ্বায়ক রিয়াদ, সদস্য সচিব আসিফ শেরপুর সদর উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব হলেন তরুণ ছাত্র নেতা সুমন ব্রাহ্মণবাড়িয়া নাসিরনগরে এশিয়ান টিভির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন ও অফিস উদ্বোধন নবীনগরে ছাত্রদল ব্লাডব্যাংকের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ নবীনগরে ছাত্রদল ব্লাডব্যাংকের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ ৬নং শ্রীবরদী ইউপির ৪নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদে দোয়া ও সমর্থন প্রত্যাশী মোঃ আবেদ আলী
ফরিদ মোস্তফার মামলায় তদন্তের নামে সময়ক্ষেপন করা হচ্ছে: বিএমএসএফ

ফরিদ মোস্তফার মামলায় তদন্তের নামে সময়ক্ষেপন করা হচ্ছে: বিএমএসএফ

ঢাকা সোমবার ৭ ডিসেম্বর ২০২০: ওসি প্রদীপের বিরুদ্ধে সাংবাদিক ফরিদ মোস্তফার মামলায় তদন্তের নামে সময়ক্ষপন করা হচ্ছে বলে বিএমএসএফের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। টেকনাফের বহুল আলোচিত ওসি প্রদীপ সহ ২৬ পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যসহ ৪ মাদক কারবারীর বিরুদ্ধে সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খানের দায়েরকৃত মামলার প্রতিবেদন দিতে ৩০ দিন সময়ের আবেদন করছেন পিবিআই তদন্তকারী অফিসার কায়সার হামিদ। তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্তের নামে সময়ক্ষেপন করায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম বিএমএসএফ ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি।

সোমবার দুপুরে বিএমএসএফের প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব আহমেদ আবু জাফর এক বিবৃতিতে বলেন, ফরিদ মোস্তফার ওপর বর্বরোচিত পুলিশি নির্যাতন দেশব্যাপী আলোচিত। তদন্তের নামে সময়ক্ষেপন না করে দ্রুত তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে দোষিদের বিচারের আওতায় আনার দাবি করা হয়।

সোমবার ৭ ডিসেম্বর কক্সবাজার আদালতে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য দিন ধার্য্য থাকায় তদন্তকারী কর্মকর্তা আরো ৩০ দিন সময় চেয়ে আবেদন করেন। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক জেরিন সুলতানা তদন্তকারী কর্মকর্তার চাওয়া ৩০ দিন সময় প্রদান করেন।

এদিকে তদন্তের নামে সময়ক্ষেপন ও বিচার নিয়ে স্থানীয় সাংবাদিকরা ও ফরিদ মোস্তফার পরিবার শংকা প্রকাশ করেন।

প্রদীপের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের জের ধরে গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর ওসি প্রদীপ কুমার তার দলীয় বাহীনি নিয়ে সাংবাদিক ফরিদ মোস্তফাকে রাজধানীর মিরপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করে কক্সবাজারে নিয়ে আসেন। এরপর প্রদীপ বাহিনী তার ওপর চালায় বর্বরোচিত হামলা এবং ৬টি মামলা ঠুকে অসুস্থ অবস্থায় কারাগারে পাঠান। দীর্ঘ ১১ মাস ৫দিন কারাভোগের পর জামিনে বেরিয়ে গত ৮ সেপ্টেম্বর নির্যাতনকারী পুলিশ ও সহযোগিদের বিরুদ্ধে একটি মামলা নং ৬৬৬/২০২০ দায়ের করেন।

ফরিদ মোস্তফার মামলাটি দ্রুত তদন্ত করে বিচারের আওতায় আনার দাবি আজ সারাদেশের সাংবাদিকদের প্রাণের দাবিতে পরিনত হয়েছে।

সংবাদটি প্রচার করুন




© All rights reserved © 2020 Daily Provat Barta
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com