সদ্য প্রাপ্ত
দে‌শের প্রতি‌টি জেলা উপ‌জেলায় সংবাদকর্মী নি‌য়োগ দেওয়া হ‌বে। আগ্রহিরা যোগা‌যোগ করুনঃ ০১৯২০৫৩৩৩৩৯
শিরোনামঃ
শেরপুরের শ্রীবরদীতে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ শুরু ঈশ্বরগঞ্জে স্কাউটসের ডে ক্যাম্প অনুষ্ঠিত ঈশ্বরগঞ্জের যত্ন প্রকল্পের ক্যাশ কার্ড প্রদান সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন কে গুলি করে হত্যার প্রতিবাদে শ্রীপুরে বিএমএসএফএর প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্টিত। ঈশ্বরগঞ্জে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি বরিশালে বাস-এ্যাম্বুলেন্স মুখোমুখি সংঘর্ষ ! দুই দিনরে শিশু নিহত, আহত কমপক্ষে ১৫, মুমুর্ষু-৬! জনপ্রিয় অনলাইন টিভি তুরাগ টেলিভিশনের কার্যালয় উদ্বোধন ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জের কৃতি সন্তান প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান ভূইয়া আ.লীগের উপ-কমিটির সদস্য মনোনীত শেরপুরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত ইউএনওসহ পুস্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান সাংবাদিকগণ
তীব্র শীত ও ঘন কুয়াশায় শেরপুরে জনজীবন বিপর্যস্ত

তীব্র শীত ও ঘন কুয়াশায় শেরপুরে জনজীবন বিপর্যস্ত

মো. জাকারিয়া খান জাহিদ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট :

শেরপুরের বিভিন্ন এলাকায় জেঁকে বসেছে প্রচণ্ড শীত। কনকনে হিমেল হাওয়া আর প্রচন্ড ঠান্ডার কারণে দেখা দিয়েছে,আমাশয়, ডায়রিয়া, ঠান্ডা ও পানি বাহিত রোগ সহ বিভিন্ন রোগের প্রার্দুভাব।

এতে শিশু ও বয়স্ক ব্যক্তিরাই আক্রান্ত হয়ে শেরপুরের বিভিন্ন উপজেলার হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে অনেকেই। গরু, মহিষ ও ছাগলেরও প্রচন্ড শীতের কারণে তাদেরকে নিয়ে কৃষকরা পড়েছেন বিপাকে। সবচেয়ে গরীব, ছিন্নমূল মানুষেরা অতি কষ্টে দিনপাড় করছে।

মাঘের কনকনে হাড়-কাঁপানো শীতকে উপেক্ষা করে ভোর বেলায় কাজের সন্ধানে বেরিয়ে যায় গরীব মানুষগুলো। চলতি বরো ফসলের মাঠ পরিস্কার পরিছন্নতা ও বরো চারা রোপনের কাজ শুরু হয়েছে পুরোদমে। প্রচন্ড শীতকে উপেক্ষা করে কৃষকরা সকাল থেকেই ফসলের মাঠে কাজ করেন।সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ইরি-বোরো ধান রোপনে ব্যস্ততা পার করছে। পরিবার পরিজনরা শীতের কাঁপুনীতে আগুনের তাপ নিচ্ছে,পাশাপাশি খড় দিয়ে রান্না বান্নার কাজও করছেন মহিলারা। হাট-বাজারেও শীত থেকে বাঁচার তাগিদে সংঘবদ্ধ হয়ে সন্ধ্যার পরপরই আগুনের তাপ নিতে দেখা যায়। প্রচন্ড শীতে গরীব ও ছিন্নমূল মানুষের দুঃখের শেষ নেই, শীত বস্ত্রের অভাবে অনেকেই বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বাহির হচ্ছেনা। পুরাতন কাপড়ের দোকানে কম দামের শীত বস্ত্র ক্রয় করতে গরীব মানুষের উপচে পরা ভিড় ও দিনের বেলায় যানবাহনের হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করতে দেখা যায়।

এদিকে সূর্যের আলো দেখা না যাওয়ার ফলে জেলার পাহাড়ী অঞ্চলের মানুষেরা ঘনকুয়াশা, হিমেল হাওয়া ও শীতের মধ্যে অতি কষ্টে জীবনযাপন করছে।

দিনের বিকালতে একটু রোদ থাকলেও সন্ধার পড়ে বৃষ্টির মতো কুয়াশা পড়ে।এতে ফসলের ক্ষতি হতে পারে বলে জানিয়েছেন কৃষকরা।

সংবাদটি প্রচার করুন




© All rights reserved © 2020 Daily Provat Barta
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com